আলোকিত হবে রাতের ময়মনসিংহ, দ্যুতি ছড়াবে ১৮২ কিলোমিটার সড়কে

প্রকাশিতঃ 1:53 pm | February 12, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলোঃ

রাতের বেলায় নতুন চেহারা পেতে যাচ্ছে ময়মনসিংহ মহানগর। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কসমূহ আর ঘুটঘুটে অন্ধকারে ডুববে না। ১৮২ কিলোমিটার সড়কে ৬ হাজার ৬৬৬ টি বাতির মিষ্টি আলোর ছটায় ছড়িয়ে পড়বে দ্যুতি। রাতের ময়মনসিংহ থাকবে পর্যাপ্ত আলোকিত। ইতোমধ্যেই ৪৯ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রকল্পটি যৌথভাবে বাস্তবায়ন করবে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) প্রকৌশল বিভাগ এবং সাইফ পাওয়ারটেক ও প্রোপার্টি লিমিটেড।

জানা যায়, শিল্প-সংস্কৃতি এবং ইতিহাস-ঐতিহ্যময় ময়মনসিংহ নগরীকে পুরো মাত্রায় ঢেলে সাজাতে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের প্রতিষ্ঠাতা মেয়র মো.ইকরামুল হক টিটু। উন্নত ও আধুনিক ময়মনসিংহের অন্যতম পূর্ব শর্ত আলোকিত নগরী উপহার দিতে নিজের অভিজ্ঞতা ও নগরবীদদের ভাবনা-চিন্তার মিশেলে প্রতিটি সড়কে বসবে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী এলইডি, এনার্জি সেভিংস ও সোলার বাতি।

এজন্য পুরো প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৯ কোটি টাকা। এরই মধ্যে দু’টি প্রতিষ্ঠানকে ২৫ কোটি টাকার কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে। তারা ২০২১ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে নিজেদের কাজ সম্পন্ন করবেন। বাদ বাকী ২৪ কোটি টাকার কার্যাদেশও দ্রুত সময়ের মধ্যেই প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন করপোরেশনের প্রকৌশল বিভাগ।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, সিটি করপোরেশনের মেয়র ইকরামুল হক টিটু গত বছরের ২৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় নগরের খাগডহর ঘুন্টি এলাকা ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের সামনে থেকে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত পোলসহ এলইডি বাতি স্থাপন কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। পর্যায়ক্রমে নগরীর ১ থেকে ২১ টি ওয়ার্ডের প্রতিটি সড়ক এলইডি, এনার্জি সেভিংস ও সোলার বাতি বাতির আলোয় আলোকিত হবে।

সিটি করপোরেশনের প্রকৌশল বিভাগ জানিয়েছে, সিটি করপোরেশনের নতুন ওয়ার্ড হিসেবে পরিচিত ২২ নম্বর ওয়ার্ড থেকে ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের প্রধান প্রধান সড়ক এ প্রকল্পের আওতায় আসবে। অলিগলির সড়কগুলোতে  আলোর পসরা নিয়ে জ্বলে উঠবে সোলার বাতি। অন্ধকার তাড়িয়ে আলোকিত নগরী গড়ার প্রথম ধাপ হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে এ উদ্যোগ। এর মাধ্যমে নগরবাসীর স্বাচ্ছন্দ্যে পথচলাও নিশ্চিত হবে।  

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরও জানায়, রাতের ময়মনসিংহে নিরাপত্তা ব্যবস্থা শক্ত ও জোরদার করার জন্য ১ হাজার ৩০৩টি শেডসহ এনার্জি সেভিংস ল্যাম্প ও ৫ হাজার ৩৭০টি শেডসহ এলইডি বাতি স্থাপিত হচ্ছে। এছাড়া একইভাবে বসানো হবে ৩৬৬টি সোলার প্যানেল, ২৭০টি গার্ডেন লাইট, ৬ হাজার ৬৭৩টি ইলেকট্রিক্যাল পোল, ৩ লাখ ৪৩ হাজার ১১৭ মিটার সার্ভিস তার ও ৭৭টি বৈদ্যুতিক মিটার।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী (চলতি দায়িত্ব) জিল্লুর রহমান জানান, এ প্রকল্প বাস্তবায়নে ৩ ফেইসের ৫৯টি বিদ্যুৎ সংযোগ, ৭৭টি এমসিসিবি, ৬০৮ ঘনমিটার পোলের ৫ টি প্যাকেজে সিসি ওয়ার্ক কেনার জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর ময়মনসিংহ মহানগর সম্পাদক আলী ইউসুফ কালের আলোকে বলেন, আধুনিক ও তিলোত্তমা ময়মনসিংহ মহানগর গড়তে বর্তমান সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আলোকিত ময়মনসিংহ গড়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে নগরবাসী এর সুফল ভোগ করবেন। এতে করে ছিনতাই, চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধও কমে আসবে।

জানতে চাইলে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু কালের আলোকে বলেন, ‘ইতিহাস-ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির শহর ময়মনসিংহকে দেশীয় পরিমন্ডলে নান্দনিকরূপে উপস্থাপনের জন্য আমাদের প্রয়াস অব্যাহত রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় রাতে নিরাপদ ময়মনসিংহ উপহার দিতে আমরা ৪৯ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছি। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে আলোকিত ময়মনসিংহ নতুন চেহারায় প্রস্ফুটিত হবে।’

কালের আলো/বিএসকে/এমএইচ

Print Friendly, PDF & Email