ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে

প্রকাশিতঃ 10:10 am | October 17, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। দুই আসনে শনিবার(১৭ অক্টোবর) সকাল ৯টায় শুরু হওয়া এই ভোট বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলবে। দুই আসনেই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেওয়া হচ্ছে।

ঢাকা-৫ আসনের শামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ধলপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় ও যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোটাররা অল্প অল্প করে আসতে শুরু করেছেন। তবে ভোটারদের উপস্থিতি কম।

এর আগে ভোটের মাঠের পরিবেশ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের বিএনপির দুই প্রার্থী। তবে তাঁরা দুজনই শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন।

অন্যদিকে, ওই দুই আসনের আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থীই পাল্টা অভিযোগ জানিয়ে বলেছেন, বিএনপি ভোটকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ও ভোটের পরিবেশ নষ্ট করতে নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। কারণ, তাঁরা ভোটের মাঠে ততটা সক্রিয় নন।

সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে দুই আসনের ভোটেই বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) মোতায়েন করেছে ইসি। তবে সার্বিক দিক বিবেচনায় নিয়ে ঢাকা-৫ আসনে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। ভোটকে কেন্দ্র করে মধ্যরাত থেকে গণপরিবহনে সীমিত নিষেধাজ্ঞা কার্যকর রয়েছে। বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে শনিবার মধ্যরাত পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয় ইসি।

ঢাকা-৫ আসনের ভোটতথ্য
ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা গত ৬ মে মারা যাওয়ায় শূন্য হয় ঢাকা-৫ আসন। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১৪টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এ আসনের উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ছয় প্রার্থী। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগের মো. কাজী মনিরুল ইসলাম, বিএনপির সালাহউদ্দিন আহমেদ, জাতীয় পার্টির মীর আবদুস সবুর, গণফ্রন্টের এইচ এম ইব্রাহিম ভূঁইয়া, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আনছার রহমান শিকদার ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. আরিফুর রহমান।

এ আসনে মোট ভোটার চার লাখ ৭১ হাজার ১২৯ জন; যার মধ্যে পুরুষ দুই লাখ ৪১ হাজার ৪৬৪ জন ও নারী দুই লাখ ২৯ হাজার ৬৬৫ জন। এই আসনে ১৮৭ কেন্দ্রের ৮৬৪টি ভোটকক্ষে ভোটগ্রহণ করা হবে।

নওগাঁ-৬ আসনের ভোটতথ্য
আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে গত ২৭ জুলাই নওগাঁ-৬ আসন শূন্য হয়। এ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোট তিনজন। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগের মো. আনোয়ার হোসেন (হেলাল), বিএনপির শেখ মো. রেজাউল ইসলাম ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. খন্দকার ইন্তেখাব আলম।

এ আসনে ভোটার তিন লাখ ছয় হাজার ৭২৫ জন, যার মধ্যে পুরুষ এক লাখ ৫৩ হাজার ৭৫৮ জন ও নারী এক লাখ ৫২ হাজার ৯৬৭ জন। এই আসনে ১০৪ কেন্দ্রের ৭২১টি ভোটকক্ষে ভোটগ্রহণ করা হবে।

কালের আলো/এসবি/এমএইচএ

Print Friendly, PDF & Email