চলে গেলেন ব্রিগেডিয়ার শহিদ উল্লাহ, স্বপ্নদর্শী এক মানুষের চির প্রস্থান

প্রকাশিতঃ 5:56 pm | July 25, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো :

স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতির বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন উচ্চকন্ঠ। গোটা দেশের স্বাস্থ্য খাতকে সিন্ডিকেট বাণিজ্যমুক্ত করতে অনুরোধ জানিয়ে সর্বোচ্চ পর্যায়ে চিঠিও দিয়েছিলেন। স্বাস্থ্য খাতের মাফিয়া হিসেবে পরিচিত মোতাজ্জেরুল ইসলাম মিঠু চক্রের মুখোশ উন্মোচন করেছিলেন।

কিন্তু গভীর বেদনাহত হৃদয় নিয়েই জানাতে হচ্ছে কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের (সিএমএসডি) সদ্য বিদায়ী পরিচালক, স্বপ্নদর্শী এক মানুষ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শহিদ উল্লাহ আর নেই।

শনিবার (২৫ জুলাই) দুপুর ২টা ৫৫ মিনিটে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। ইন্না…….রাজিউন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আয়েশা আক্তার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো.শহিদ উল্লাহ’র মুত্যুর খবর নিশ্চিত করেন।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শহিদ উল্লাহ’র মৃত্যুতে সামরিক-বেসামরিক পরিমন্ডলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন এবং তাঁর বিদেহী আত্নার মাগফেরাত কামনা করেন।

এর আগে গত ২৫ জুলাই প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি হন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো.শহিদ উল্লাহ। শনিবার (২৫ জুলাই) সকাল থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। এরপর দুপুরে সবাইকে কাঁদিয়ে তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী ও মাস্ক কেনাকাটা নিয়ে প্রশ্ন ওঠার পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৩ মো. শহীদ উল্লাহকে সিএমএসডি থেকে সেনাসদর দপ্তরে ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

গত ৩০ মে কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের (সিএমডি) বিদায়ী পরিচালক (ভান্ডার ও সরবরাহকারী) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহীদ উল্লাহ জনপ্রশাসন সচিবকে একটি চিঠি দেন। সেই চিঠিতে তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতির ভয়াবহ সব তথ্য উপস্থাপন করেন। একই সঙ্গে সিএমএসডিসহ গোটা দেশের স্বাস্থ্য খাতকে ‘সিন্ডিকেট বাণিজ্যমুক্ত’ করারও অনুরোধ জানান।

চিঠিতে সিএমএসডিসহ স্বাস্থ্য খাতে ঠিকাদার চক্রের ইশারায় বদলি, পদায়নসহ নানা বিষয়ে প্রশ্ন তুলেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো.শহিদ উল্লাহ। করোনাকালে স্বাস্থ্যসেবায় মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সমন্বয়হীনতার চিত্রও উঠে আসে তার চিঠিতে।

এতে এই সেনা কর্মকর্তা সিএমএসডির ক্রয় প্রক্রিয়ায় সরকারি এবং সাপ্লাইয়ার (ঠিকাদার) পরিবেষ্টিত দুষ্টচক্র বা সিন্ডিকেট বাণিজ্যের আধিপত্য সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ নানা তথ্য দেন। এর মাধ্যমে তিনি সারা দেশে প্রশংসিত হন। অনেকেই তাকে ‘রিয়েল হিরো’ উপাধিতেও ভূষিত করে।

ঘনিষ্ঠরা বলছেন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো.শহিদ উল্লাহ’র মতোন দেশপ্রেমিক সেনা কর্মকর্তার মৃত্যুতে দেশ হারিয়েছে দেশের প্রতি নিবেদিতপ্রাণ একজন স্বপ্নদর্শী দূরদৃষ্টিসম্পন্ন মানুষকে। কর্মযোগী ও কাজের প্রতি পূর্ণ নিবেদিত এ মানুষটির চির বিদায়ে বন্ধু ও অনুরাগীরা হারিয়েছেন নম্রভাষী সুরসিক এক স্বজনকে।

কালের আলো/এসআর/এমএইচ

Print Friendly, PDF & Email