লক্কড়-ঝক্কড় বাস ঠেকাতে আট-ঘাট বেঁধে মাঠে বিআরটিএ 

প্রকাশিতঃ 2:44 pm | May 20, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

রাজধানী ঢাকায় পুরনো লক্কড়-ঝক্কড় বাসগুলোকে রঙ করে আবার সড়কে নামানোর চর্চা মালিকদের দীর্ঘদিনের। এসব বাস সড়কে চলাচলে সুবিধার চেয়ে অসুবিধাই বেশি তৈরি করে। সড়ক দুর্ঘটনা ও যানজটের প্রধান কারণ হিসেবেও মেয়াদোত্তীর্ণ লক্কড়-ঝক্কড় গাড়িগুলোকেই দায়ী বলে মনে করে বিআরটিএ। এসব গাড়ি পরিবেশ বিপর্যয়েরও কারণ হয়ে উঠেছে। এসব বাস নিয়ে রোববার (১৯ মে) রাজধানীর একটি হোটেলে ‘ব্র্যান্ডিং সেমিনার অন ঢাকা মেট্রোরেল’অনুষ্ঠানে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘জরাজীর্ণ বাস চলাচল নিয়ে আমরা মিটিং করে বিআরটিএর সঙ্গে কথা বলেও সমাধান করতে পারিনি। রাস্তাঘাটে বাসগুলো দেখলে ভীষণ খারাপ লাগে।’

এবার এসব বাসমালিকদের এ ধরনের আচরণের লাগাম টানতে মাঠে নামার ঘোষণা দিয়েছে সরকারি নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। আঁট-ঘাট বেধেঁ মাঠে নামছে তাঁরা। রোববার (১৯ মে) বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, ঢাকা  মহানগরীতে ব্যাটারি অথবা মোটরচালিত রিকশা বা ভ্যান এবং রং চটা, জরাজীর্ণ, লক্কড়ঝক্কড় মোটরযান চালানো শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এসব চালানো বন্ধ করা না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘ব্যাটারি ও মোটরচালিত রিকশা বা ভ্যান বা অনুরূপ শ্রেণির থ্রি-হুইলার ঢাকা মহানগরীতে চলাচলের কারণে সড়ক নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। সড়ক পরিবহণ আইন, ২০১৮ অনুযায়ী ব্যাটারি ও মোটরচালিত রিকশা বা ভ্যান বা অনুরূপ শ্রেণির থ্রি-হুইলার এবং ফিটনেসের অনুপযোগী, রং চটা, জরাজীর্ণ ও লক্কড়ঝক্কড় মোটরযান চালানো শাস্তিযোগ্য অপরাধ।’

জানা যায়, অস্বাস্থ্যকর বায়ুর মানে প্রায় প্রতিদিনই রেকর্ড হচ্ছে রাজধানীর বাতাস। ফলে চরম ঝুঁকিতে পড়ছে জনজীবন। তবে এসব অস্বাস্থ্যকর বাতাস এবং অসহনীয় তাপপ্রবাহের কারণ হিসেবে গাছ কাটার পাশাপাশি কালো ধোঁয়া নির্গত মেয়াদোত্তীর্ণ লক্কর-ঝক্কর গাড়িগুলোকেও অন্যতম কারণ হিসেবে দেখছেন পরিবেশবিদরাও। পরিবেশবিদদের তথ্য মতে, পরিবেশ দূষণের অন্যতম তৃতীয় কারণ লক্কর-ঝক্কর মেয়াদোত্তীর্ণ এসব যানবাহন, যা বায়ু দূষণের জন্য ১৫ ভাগ দায়ী।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি বলছে, রাজধানীতে চলাচলকারী ৭৪ কোম্পানির মধ্যে ৩৬টি কোম্পানির গাড়ি সড়কে চলচলের অযোগ্য। এরই মধ্যে ২১ বার চিঠি দিয়েও সড়কে ফিরছে না শৃঙ্খলা। তাই ঠিক না করে সড়কে গাড়ি নামালে কোম্পানির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি মালিক সমিতির।

রাজধানীর গলার কাঁটা এসব যানবাহনের সমালোচনায় মুখর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বাস মালিকদের প্রতি প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘মেট্রোরেল থেকে নেমে গরিব, জীর্ণশীর্ণ বাস দেখতে কেমন লাগে? বাসের মালিকরা কি লজ্জা পায় না? তারা কি বিদেশে যান না? তারা সেখানকার বাসগুলো দেখেন না?’

সেতুমন্ত্রী বলেন, যে শহরে মেট্রোরেলের মতো আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন যান চলছে, সেখানে এ ধরনের গরিব ও জীর্ণশীর্ণ চেহারা লক্কর-ঝক্কর বাসগুলো দেখলে আসলেই লজ্জা লাগছে।’

কালের আলো/এমএএইচ/ইউএইচ 

Print Friendly, PDF & Email