বিভাগীয় দায় থেকে অব্যাহতি পেলেন এসপি জাহাঙ্গীর

প্রকাশিতঃ 6:53 pm | March 11, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত ফেনীর সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বিভাগীয় দায় থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (১০ মার্চ) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম সরকার ফেনীতে কর্মরত অবস্থায় সোনাগাজী থানার মামলা নং-২৪(৩)১৯, ধারা-১০, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ (সংশোধনী/২০০৩) এর ভিকটিম নুসরাত জাহান রাফি ২০১৯ সালের ৬ এপ্রিল সকালে আলীম পরীক্ষার সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে অগ্নিদগ্ধ হন।

সোনাগাজী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কামাল হোসেন, জেলার ডিআইও-১ পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ শাহীনুজ্জামান বিষয়টি এসপিকে অবহিত করেন। তিনি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের তদন্তাধীন মামলার ভিকটিম নুসরাত জাহান রাফি আলীম পরীক্ষা কেন্দ্রে অগ্নিদগ্ধের ঘটনা অবহিত হওয়ার পরও যথাযথ গুরুত্ব না দিয়ে বেলা ১২টার দিকে ফেনী সদর থেকে খাগড়াছড়ির বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় যোগদানের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। প্রায় আড়াই ঘণ্টা যাওয়ার পর খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা থানার মিসরীপাড়া এলাকা থেকে ওইদিন বেলা আড়াইটার দিকে পুনরায় ফেনীর উদ্দেশ্যে রওনা হন। ৫টার দিকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আন্তরিকতার সঙ্গে ঘটনাটি পর্যালোচনা করেননি। এছাড়া তিনি সোনাগাজী থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেনকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিতে ব্যর্থ হওয়া, পরবর্তী সময়ে ঘটনা সম্পর্কে অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন মিডিয়ায় বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দেন। যার কারণে পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ ও ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুণ্ণ হয়। ১৪ এপ্রিল ঢাকায় পাঠানো প্রতিবেদনে ভিকটিমের প্রদত্ত প্রকৃত জবানবন্দি উল্লেখ না করে দায়সারা প্রতিবেদন পাঠিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিভ্রান্ত করেন।

এসব অভিযোগের ভিত্তিতে ২০২১ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর এসপি জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলায় কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়। একই বছরের নভেম্বরে জাহাঙ্গীর আলম ব্যক্তিগত শুনানির আবেদন করেন। তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ব্যক্তিগত শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

শুনানিকালে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ, লিখিত জবাব, উভয়পক্ষের বক্তব্য এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দালিলিক প্রমাণ পর্যালোচনায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হলে গুরুদণ্ড আরোপের প্রয়োজন হতে পারে প্রতীয়মান হওয়ায় সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮ এর ৭(২)(ঘ) বিধি মোতাবেক অভিযোগ তদন্তের জন্য ২০২২ সালের ১২ জুন অতিরিক্ত ডিআইজি সারোয়ার মোর্শেদ শামীমকে তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়।

তদন্ত কর্মকর্তা সরেজমিনে তদন্ত শেষে ২০২২ সালের ২৫ অক্টোবর প্রতিবেদন দেন। তাতে তিনি বলেন, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি।

পরবর্তী সময়ে নথিপত্র পর্যালোচনায় বিভাগীয় মামলাটি পুনঃতদন্তের জন্য গত বছরের ২৬ জানুয়ারি যুগ্মসচিব আবুল ফজল মীরকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়। একই বছরের আগস্টে তদন্ত কমিটি পুনঃতদন্ত প্রতিবেদনে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি উল্লেখ করে।

এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকারের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ, লিখিত জবাব, ব্যক্তিগত শুনানিতে উভয়পক্ষের বক্তব্য, তদন্ত প্রতিবেদন এবং পুনঃতদন্ত প্রতিবেদনের মতামত, প্রাসঙ্গিক অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দলিল পর্যালোচনা করে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ এর বিধি ৩(খ) মোতাবেক ‘অসদাচরণ’-এর অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে রুজুকৃত বিভাগীয় দায় থেকে অব্যাহতি দেওয়া হলো বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে। জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email