দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়

প্রকাশিতঃ 12:11 pm | January 06, 2023

কালের আলো প্রতিবেদক:

কনকনে শীতে কাঁপছে চুয়াডাঙ্গা। ঘন কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় জনজীবনে দুর্ভোগ নেমে এসেছে। কোথাও কোথাও বৃষ্টির মতো ঝরছে কুয়াশা। হেডলাইট জ্বালিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করেছে যানবাহন। হিম বাতাসে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পাচ্ছেন শিশু, বৃদ্ধ আর ছিন্নমূল মানুষেরা। খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন অনেকে।

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) সকাল ৯ টায় চুয়াডাঙ্গায় সর্বনিম্ন ৯ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। যা সারাদেশের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের পর্যবেক্ষক রকিবুল হাসান।

সকাল থেকে মধ্য বেলাতেও দেখা মিলছে না সূর্যের। যদিও কিছুক্ষণ উঁকি দিচ্ছে সূর্য কিন্তু নেই কোনো উত্তাপ। চারপাশ জুড়ে থাকছে কুয়াশার দাপট। হিম শীতল বাতাসে শীতের তীব্রতা জানান দিচ্ছে কয়েকগুণে। প্রয়োজনীয় কাজ ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে না জনসাধারণ। যারা বের হচ্ছে তারাও গরম কাপড় পরে শীতের প্রস্তুতি নিয়েই বের হচ্ছে। শীতের তীব্রতায় শ্রমজীবী মানুষ পড়েছেন বিপাকে। টান পড়ছে আয় রোজগারে।

শীতজনিত রোগের প্রার্দুভাব বাড়ছে। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন রোগী আক্রান্ত হয়ে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আবার ঘন কুয়াশায় ব্যাহত হচ্ছে কৃষি কাজও। ধানের বীজতলা তৈরি, ভুট্টা ও আলুসহ বিভিন্ন কাজ করছেন কৃষকরা। ফলন বিপর্যয়ের আশঙ্কা করেছে কৃষকরা।

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের পর্যবেক্ষক রকিবুল হাসান জানান, গত দুদিন ধরে চুয়াডাঙ্গার ওপর দিয়ে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এছাড়া বাতাসের আদ্রতার পরিমাণ বেশি। দিনের বেলায় সূর্যের উত্তাপ মিলছে না। এতে শীতের তীব্রতা বেশি অনুভূত হচ্ছে। আরও কয়েকদিন এমন পরিস্থিতি বিরাজ করতে পারে।

কালের আলো/এসবি/এমএম

Print Friendly, PDF & Email