কপ ২৭ এজেন্ডায় ‘ক্ষতি’ অন্তর্ভুক্ত করায় মিশরীয় প্রেসিডেন্সিকে ধন্যবাদ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

প্রকাশিতঃ 9:00 pm | November 16, 2022

ডেস্ক রিপোর্ট, কালের আলো:

কপ২৭ সম্মেলনের আলোচ্যসূচির অংশ হিসাবে ‘ক্ষতি’ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু অন্তর্ভুক্ত করার জন্য মিশরীয় প্রেসিডেন্সিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) মিশরের শারম এল শেখ নগরীতে মিশরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং কপ২৭ এর প্রেসিডেন্ট সামেহ শউকরির সাথে বৈঠকের সময় তিনি এ ধন্যবাদ জানান।

বুধবার (১৬ নভেম্বর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

এতে বলা হয়, ড. মোমেন আশা প্রকাশ করেন, এ সম্মেলন ক্ষতির জন্য অর্থায়নের একটি সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত গ্রহন করতে সক্ষম হবে।

মিসরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশ সফরে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। মন্ত্রীরা উভয় পক্ষের মধ্যে সংসদীয় অভিজ্ঞতা বিনিময় জোরদার করতে সম্মত হন।

মোমেন ক্ষয়-ক্ষতির সম্ভাব্য প্রভাব নিয়ে আলোচনা করতে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিশেষ দূত জন কেরির সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন।

তারা পরে ঘানার নেতৃত্বে ভি২০ (ভালনারেবল টুয়েন্টি গ্রুপ অফ ফাইন্যান্স মিনিস্টারস) এর অন্যান্য প্রতিনিধিদের সাথে একটি সম্মিলিত বৈঠক করেন।

মার্কিন বিশেষ দূত গ্লোবাল মিথেন প্রতিশ্রুতিতে যোগদানের জন্য বাংলাদেশকে ধন্যবাদ জানান এবং মিথেন হ্রাসে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য কিছু অর্থায়নের সুযোগ তুলে ধরেন।

ড. মোমেন বাংলাদেশে কৃষি, প্রাণিসম্পদ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা খাতে এ ধরনের সহায়তার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জলবায়ু সহনশীল কৃষি এবং নবায়নযোগ্য বিদ্যুৎ গ্রিড নেটওয়ার্কের জন্য মার্কিন সহায়তার প্রশংসা করেন। তারা জলবায়ু ঝুঁকির জন্য গ্লোবাল শিল্ড তৈরির লক্ষ্যে কাজ করতে সম্মত হয়েছে।

এর আগে মোমেন ডাচ অবকাঠামো ও পানি ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মার্ক হারবারসের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তারা আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য জাতিসংঘ পানি সম্মেলনে পানির উপর জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় চ্যাম্পিয়নস গ্রুপের জন্য সম্ভাব্য ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করেছেন। দুই মন্ত্রী বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ এর আওতায় প্রকল্প বাস্তবায়নের বিষয়েও মতবিনিময় করেন।

মিসরে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো: মনিরুল ইসলাম এবং নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মো: আবদুল মুহিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

কালের আলো/এসবি/এমএম

Print Friendly, PDF & Email