ডিএমপি কমিশনার নিয়োগে প্রধানমন্ত্রীর ‘চমক’, যোগ্যতার মাপকাঠিতেই ‘বেস্ট’ খন্দকার গোলাম ফারুক

প্রকাশিতঃ 10:28 pm | October 23, 2022

এম.আব্দুল্লাহ আল মামুন খান, অ্যাকটিং এডিটর, কালের আলো:

রাজধানীর নতুন পুলিশপ্রধান হিসেবে অনেকের নামই উচ্চারিত হয়েছিল। গণমাধ্যমেও ঠাঁই করে নিয়েছিল বিশ্লেষণী নানা প্রতিবেদন। কিন্তু বিদায়ী ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের উত্তরসূরী নির্বাচনে বড় এক ‘চমক’ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ৩৬ তম ডিএমপি কমিশনার হিসেবে তিনি বেছে নিলেন ১২ তম বিসিএস ব্যাচের সৎ ও মেধাবী কর্মকর্তা, অতিরিক্ত আইজিপি খন্দকার গোলাম ফারুককে। পুলিশ স্টাফ কলেজ (পিএসসি) এর রেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা টাঙ্গাইলের এই সন্তান এখন সামলাবেন দেশের পুলিশের সবচেয়ে বড় ও অতি গুরুত্বপূর্ণ এই ইউনিট।

রবিবার (২৩ অক্টোবর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ শাখার উপসচিব মো. হারুনুর রশিদ স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নতুন কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয় খন্দকার গোলাম ফারুককে। রাজধানীকে নিরুপদ্রব নিরাপদ রাখতে পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির এই পুলিশ কর্মকর্তার ওপরেই আস্থা রেখেছেন সরকারপ্রধান। আকন্ঠ সততার ঝর্ণাধারার সঙ্গে দক্ষতা, পেশাদারিত্ব, যোগ্যতা ও সার্বিক গ্রহণযোগ্যতার মেলবন্ধন ঘটিয়েই খন্দকার গোলাম ফারুক অধিক ‘স্পর্শকাতর’ ও ‘মর্যাদাপূর্ণ’ এই চেয়ারে বসতে যাচ্ছেন।

ডিএমপি কমিশনার মনোনয়নে মণি-মুক্তার মতোই উজ্জ্বল, প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী ও বিচক্ষণ সিদ্ধান্তের প্রশংসার প্রচ্ছায়া অনুরণন তুলেছে সাধারণের মাঝেও। রীতিমতো আন্দোলিত করেছে জনতার পুলিশকেও। আপাদমস্তক অসাম্প্রদায়িক, দেশপ্রেম আর মহান মুক্তিযুদ্ধের সুমহান চেতনায় স্নাত, মানবিকবোধ শক্তিতে প্রাণিত নতুন এই ডিএমপি কমিশনার আনন্দ তরঙ্গিত আবাহন, অনাবিল সৌকর্যের স্বাভাবিকতা ও নিজস্বতার বার্তায় এদিন নিজের ফেসবুক আইডিতে এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘সবার দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করছি, যেন আমার উপর অর্পিত গুরুদায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে পারি।’ দায়িত্ব পাওয়ার পর সন্ধ্যায় এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানান ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক।

নতুন দায়িত্ব পাওয়ার ‘এই শুভক্ষণে’ ধন্য সেই পুরুষ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আখতার হোসেন, ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বিনয়াবনত কন্ঠে নিজ দায়িত্বের মর্যাদা রাখতে অত্যুদ্যমী আলোকময়তায় সংবেদী সত্তায় পল্লবিত হয়েই, বিকশিত অভীস্পায় অকৃত্রিম শব্দগুচ্ছে খন্দকার গোলাম ফারুক আরও লিখেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয় যে আস্থা ও বিশ্বাস নিয়ে আমাকে ডিএমপি কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দিলেন, আমি তার মর্যাদা রাখার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।’

ডিএমপি কমিশনার হিসেবে এতোদিন বিভিন্ন উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তার নাম গুঞ্জরিত হলেও দিন তিনেক আগেই দৃশ্যপটে উঠে আসে খন্দকার গোলাম ফারুকের নাম। অবশ্য দেশের একটি গণমাধ্যম আগ বাড়িয়ে সবজান্তার ভূমিকায় আকস্মিক প্রেডিক্ট করে- খন্দকার গোলাম ফারুক এই পদে আসছেন না। নতুন তালিকার সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। আদতে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী সিদ্ধান্তের কাছে কোন ভবিষৎবাণীই হালে পানি পায়নি। সব দ্বিধা-সংশয়কে পর্যদুস্ত করে ঝলমলে নেতৃত্বে অভিষিক্ত হলেন নিজ বাহিনীতে সুনাম কুড়ানো, অভিজ্ঞতায় ঋদ্ধ এই পুলিশ কর্মকর্তা।

পুলিশে বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার খন্দকার গোলাম ফারুকের। পুলিশ সুপার (এসপি) হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, ঝালকাঠি ও ঠাকুরগাঁও জেলায়। ডিআইজি ছিলেন রংপুর ও চট্টগ্রাম রেঞ্জের। ছিলেন সারদা পুলিশ একাডেমির প্রিন্সিপাল। সবশেষ অতিরিক্ত আইজিপি হিসেবে ছিলেন পুলিশ স্টাফ কলেজের (পিএসসি) রেক্টর। অর্থাৎ ধাপে ধাপে নিজেকে প্রমাণ করেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সঞ্চারিত হয়েই আরও বড় পরিসরে নির্বিকল্প দায়িত্ব পালনে নিজেকে প্রস্তুত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় পরীক্ষিত সারথী হয়েই দায়িত্ব ও কর্তব্যবোধের ঐকতানে সমুজ্জ্বল করেছেন নিজেকে। অর্জন করেছেন সরকারপ্রধানের আস্থা আর বিশ্বাস। তবুও গণমাধ্যমের কাছে খবর না থাকলেও একজন খন্দকার গোলাম ফারুকের বিশ্বস্ততা ও কার্যকর নেতৃত্বের দক্ষতা সম্পর্কে ঠিকই ওয়াকিবহাল চারবারের প্রজ্ঞাবান সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা। শেষতক এই পদটিতে বেছে নিলেন তাকেই।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি ২০১৩-১৪ স্টাইলে সহিংস হয়ে উঠতে পারে। এমনটি হলে রাজধানীর ঢাকায় নাশকতা ও বিশৃঙ্খলা দমনের মাধ্যমে নগরবাসীর চলার পথকে মসৃণ ও নিরাপদ রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে নতুন ডিএমপি কমিশনারকেই। যেকোনো কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করে রাজধানীর জনজীবনকে নিরবচ্ছিন্ন ও স্বস্তিময় করতে নেতৃত্বের গুণাবলী রয়েছে অতিরিক্ত আইজিপি খন্দকার গোলাম ফারুকের। মহানগরীর পুলিশ সদস্যদের অবিচ্ছেদ্য ঐক্যের প্রবাহে সঞ্চালিত করতে ‘ক্যারিশম্যাটিক’ এই ডিএমপি কমিশনার হবেন দুরন্ত-দুর্বার। তার আলোকোজ্জ্বল ক্যারিয়ারের ইতিহাস অন্তত সেই কথাই বলছে।

কালের আলো/এমএএএমকে

Print Friendly, PDF & Email