চাল-তেলের দাম কমায় জুলাই মাসে মূল্যস্ফীতি কিছুটা কমেছে : পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 3:41 pm | August 03, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

চাল ও তেলের দাম কমায় খাদ্য মূল্যস্ফীতি কিছুটা কমেছে জানিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, নিম্নআয়ের মানুষের জন্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য নিয়ে আলাদা হিসাব করার বিষয়ে সরকারের পরিকল্পনা আছে।

বুধবার (৩ আগস্ট) পরিকল্পনা কমিশনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী জানান, জুলাই মাসে মূল্যস্ফীতি কমেছে। জুনে ছিল ৭.৫৬%। জুলাইতে কমে ৭.৪৮% হয়েছে। শূন্য দশমিক ৮% কমেছে। আগস্টে মূল্যস্ফীতি আরও কিছুটা কমবে বলে আশা করছি।

৪২২টি দ্রব্য নিয়ে মূল্যস্ফীতি হিসাব করা করা হয় উল্লেখ করে এম এ মান্নান বলেন, খাদ্য মূল্যস্ফীতি জুনে ছিল ৩.৩৭%। আর জুলাইতে ৮.১৯% হয়েছে। খাদ্য বহির্ভূত মূল্যস্ফীতি জুনে ৬.৩৩% ও জুলাইতে ৬.৩৯% হয়েছে।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘অনেকে বলেছিল বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা হবে। তাদের জন্য বলতে চাই, আমরা শ্রীলঙ্কা হইনি, হবো না। মূল্যস্ফীতির হার কমতে শুরু করেছে। আপনারা দেখছেন— খাদ্যের জাহাজ রাশিয়া থেকে সাগরে ভাসতে ভাসতে আমাদের তীরে আসবে। তেল, চাল ও গমের দাম কমছে। সামনে মূল্যস্ফীতির কমতির ধারা অব্যাহত থাকবে। এটা আমাদের জন্য ভালো খবর। আমরা জানি, মূল্যস্ফীতি বাড়লে মানুষের কষ্ট হয়। ৪২২টি পণ্যের গড় করে মূল্যস্ফীতির তথ্য দেওয়া হয়েছে।’

বিবিএস-এর তথ্যে মাসওয়ারি পেঁয়াজ, ডাল, চিনি, মুড়ি, মাছ, মাংস, ব্রয়লার মুরগি, ফল, তামাক, দুগ্ধজাতীয় পণ্য এবং অন্যান্য খাদ্য সামগ্রীর দাম কিছুটা কমেছে। ডিম, শাকসবজি ও মসলা জাতীয় পণ্যের দামও কমেছে বলে দাবি সংস্থাটির।

খাদ্যবহির্ভূত খাতে মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে জুলাই মাসে ৬ দশমিক ৩৯ শতাংশ হয়েছে, জুন মাসে যা ছিল ৬ দশমিক ৩৩ শতাংশ। বাড়িভাড়া, আসবাবপত্র, গৃহস্থলী, চিকিৎসাসেবা, পরিবহন, শিক্ষা উপকরণ এবং বিবিধ সেবা খাতের মূল্যস্ফীতির হার ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email