যশোর সেনানিবাসে ‘এক্সারসাইজ সম্প্রীতি-১০’ ও সিলেটে ‘এক্সারসাইজ টাইগার শার্ক-৩৯’ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিতঃ 9:47 pm | June 16, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

বাংলাদেশ এবং ভারতীয় সেনাবাহিনীর অংশগ্রহণে যৌথ প্রশিক্ষণ ‘এক্সারসাইজ সম্প্রীতি-১০’ এর সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) যশোর সেনানিবাসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল ষ্টাফ (সিজিএস) লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই অনুশীলনের সফল সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর ২০ মাউন্টেন ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং মেজর জেনারেল প্রবীণ চার্ব্রা।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে।

অনুষ্ঠানে ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং মেজর জেনারেল মোঃ নূরুল আনোয়ার ও ভারত ও বাংলাদেশের ঊধর্তন কর্মকর্তা, জেসিও এবং অন্যান্য পদবীর সেনাসদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আইএসপিআর জানিয়েছে, ২০১০ সাল থেকে এই অনুশীলনটি উভয় দেশ দ্বিপাক্ষিকভাবে আয়োজন করে আসছে। এই যৌথ অনুশীলনের প্রাথমিক উদ্দেশ্য হচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতের সেনাবাহিনীর মধ্যে বিদ্যমান ইতিবাচক সম্পর্ককে আরও সুদৃঢ় করা। এক্সারসাইজ সম্প্রীতি-১০ বাংলাদেশ ও ভারতের সেনাবাহিনীর মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক বলে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান তাঁর বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

এক্সারসাইজ সম্প্রীতি-১০ এর মাধ্যমে বাংলাদেশ ও ভারতীয় সেনাবাহিনীর সদস্যবৃন্দ সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান, মানবিক সহায়তা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা এবং জাতিসংঘে বেসামরিক ব্যক্তিদের সুরক্ষা কার্যক্রম বিষয়ে যৌথ অভিযান অনুশীলন করে। গত ০৫ জুন ২০২২ তারিখ হতে শুরু হওয়া এই অনুশীলনে উভয় দেশের প্রায় দেড় শতাধিক অফিসার, জেসিও এবং অন্যান্য পদবীর সেনাসদস্য অংশগ্রহণ করে। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি এবং মেজর জেনারেল প্রবীণ চার্ব্রা অনুশীলনে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণ করেন।

এক্সারসাইজ টাইগার শার্ক-৩৯
এদিকে এদিন সিলেটের জালালাবাদ সেনানিবাসে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর মধ্যে আয়োজিত যৌথ প্রশিক্ষণ ‘এক্সারসাইজ টাইগার শার্ক – ৩৯’ এর সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেনারেল অফিসার কমান্ডিং ও এরিয়া কমান্ডার সিলেট এরিয়া মেজর জেনারেল হামিদুল হক। এ সময় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন হেলেন গ্রেইস লাফেব উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ২৫ মে হতে ১৬ জুন পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্যারা কমান্ডো ফোর্স, বাংলাদেশ নৌবাহিনীর SWADS এবং ইউকে স্পেশাল ফোর্স এর সদস্যদের সমন্বয়ে যৌথ প্রশিক্ষণ ‘এক্সারসাইজ টাইগার শার্ক-৩৯’ পরিচালনা করা হয়।

আইএসপিআর জানায়, এই প্রশিক্ষণের মূল উদ্দেশ্য ছিল এন্টি টেরোরিজম সম্পর্কে বিস্তারিত জ্ঞান, ক্লোজ কোয়ার্টার ব্যাটেল এবং কাউন্টার টেরোরিজম, ফায়ারিং বিষয়ক অভিজ্ঞতা ও বিশেষ জ্ঞান বিনিময়। অনুশীলনে বিশেষায়িত দল কর্তৃক জল, স্থল এবং আকাশ পথে অনুপ্রবেশের প্রশিক্ষণও পরিচালিত হয়। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৩৩ জন প্যারা কমান্ডো, বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ১০ জন SWADS সদস্য এবং যুক্তরাষ্ট্র স্পেশাল ফোর্সের ১২ জন সদস্য অনুশীলনে অংশগ্রহণ করেন।

‘এক্সারসাইজ টাইগার শার্ক – ৩৯’ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে এসআইএন্ডটি এর কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল চৌধুরী মোহাম্মদ আজিজুল হক হাজারীসহ সেনাসদরের ঊধর্তন কর্মকর্তা, বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস হতে আগত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গসহ সিলেট অঞ্চলে কর্মরত ঊধর্তন সামরিক কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন পদবীর সেনাসদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ড.এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ অনুশীলন দুটি সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় এবং সংশ্লিষ্ট সেনাবাহিনীর সদস্যরা অংশগ্রহণ করায় ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী প্রধানকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

এছাড়াও তিনি অনুশীলন সম্প্রীতি-১০ এবং অনুশীলন টাইগার শার্ক-৩৯ কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সফলভাবে সম্পন্ন করায় অংশগ্রহণকারী সকল সদস্য এবং আয়োজকদের বিশেষভাবে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর সাথে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সম্পর্ক সুদৃঢ় হওয়ার পাশাপাশি পেশাগত যোগাযোগের মাত্রা বৃদ্ধি পাবে বলেও জানানো হয়েছে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

কালের আলো/বিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email