সফলতার ‘রহস্য’ গোপন রাখতে চান লিটন

প্রকাশিতঃ 8:17 pm | May 24, 2022

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

ক্যারিয়ার শুরুর পর ২৬টি ম্যাচেও শতকের দেখা পাননি লিটন দাস। যাকে কী না বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা ব্যাটার ধরা হয়, তার ক্যারিয়ারের শুরুতে এমন দশা মেনে নিতে পারছিলেন না নিজেও। শতকের দেখা না পেলেও নব্বইয়ের ঘরে যেতে পেরেছিলেন একবার।

হঠাৎই যেন বদলে গেছেন লিটন দাস। ক্রিকেটের বনেদী সংস্করণ টেস্টে ব্যাটে হাতে নামলেই নিজ ব্যাটে রানের ফোয়ারা ছোটাচ্ছেন এই ডানহাতি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। চলমান বাংলাদেশ বনাম-শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ঢাকা টেস্টে সেঞ্চুরি তুলে খেলেছেন ক্যারিয়ার সেরা ১৪১ রানের ইনিংস। অথচ কয়েকমাস আগেও তার পড়তি পারফরম্যান্সের জন্য পড়তে হতো সমর্থকদের রোষানলে। ঠিক কিভাবে এমন পরিবর্তন?

লিটন জানালেন, অনুশীলন প্রক্রিয়ার পরিবর্তন এনে সফল তিনি। তবে কোন প্রক্রিয়ায় হেঁটেছেন, সেটি জানাতে চান না। নিজের সফলতার রহস্য নিজের মধ্যে অর্থাৎ গোপনেই রাখতে চান লিটন। আজ মঙ্গলবার মিরপুরে সংবাদমাধ্যমকে এ কথা বলেন তিনি।

লিটন বলছিলেন, ‘আপনারা এটা ভালো বলতে পারবেন। আমার কাছে মনে হয় আমি অনুশীলন প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন এনেছি। এটা কীভাবে বিশ্লেষণ দিব? মানে আমি কীভাবে বিশ্লেষণ করবো কি ধরণের মেথড পরিবর্তন করেছি। আপনিতো বুঝবেনও না কোন প্র্যাকটিস কেমন। আমি তো বিশ্লেষণ দিতেও পারবো না।’

সঙ্গে যোগ করেন লিটন, ‘খুবই কঠিন এ জিনিসটা (বলা)। কি কি করি না বা কি কি পরিবর্তন হয়েছে। আমার কাছে মনে হয় আমার প্র্যাকটিস মেথড পরিবর্তন হয়েছে এটা আমি বলতে পারি, কিন্তু কি কি পরিবর্তন হয়েছে সেটা আমি বলতে পারবো না। কীভাবে সফল হচ্ছি বা কেন হচ্ছি এ জিনিসটা আমার ভেতরে থাক।’

ক্যারিয়ারের প্রথম ২০ টেস্টে গড় আটকে ছিল ৩০ এর নিচে। অথচ গত দুই বছরে তার ব্যাটিং ঈর্ষাণিত করবে যে কাউকে। ২০২১ সালে ৭ টেস্টে ৫ ফিফটিতে প্রায় ৫০ গড়ে (৪৯.৫০) রান করেছেন ৫৯৪। চলমান টেস্ট সহ চলতি বছর আরও সফল তিনি। ৬ ম্যাচের ৯ ইনিংসে রান করেছেন ৫৬.২২ গড়ে ৫০৬। যা চলতি বছর টেস্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় দুই নম্বরে। ইতোমধ্যে ক্যারিয়ার গড়ও বেড়ে হয়েছে ৩৪.৩০।

তবে লিটন জানেন আবার খারাপ ফর্মের মধ্য দিয়ে গেলে সমালোচনার মুখে পড়তে হবে তাকে। এটা মেনে নিয়েই পথচলা তার, ‘চেষ্টা তো সবসময় করি। কিন্তু কিছু সময় ব্যর্থ হই, কিছু সময় সফল হই। এটাই ক্রিকেট, এভাবেই চলতে থাকবে। আজকে ভালো করতেছি, কালকে আবার খারাপ হলে (সমালোচনা) হতেও পারে। এটা মেনেই জীবন। এভাবেই চলতে থাকবে।’

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email