দুর্বল হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হল ‘অশনি’

প্রকাশিতঃ 10:59 am | May 11, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

প্রবল ঘূর্ণিঝড় অশনি এখন সাধারণ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। এর প্রভাবে গতকালকের মতো আজও ঢাকাসহ দেশের বেশিরভাগ অঞ্চলে বৃষ্টি হবে। এই বৃষ্টি থাকতে পারে সন্ধ্যা পর্যন্ত। তবে কোথাও কোথাও টানা বৃষ্টি নাও হতে পারে। থেমে থেমে হালকা, মাঝারি বা ভারী বৃষ্টি হতে থাকবে বলে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে।

বুধবার (১১ মে) সকালে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোসাগরে অবস্থিত ‘অশনি’ আরও পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়েছে। শক্তি হারিয়ে পরিণত হয়েছে ঘূর্ণিঝড়ে। আগামী কয়েক ঘণ্টায় ‘অশনি’ আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূল লাগোয়া পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে পৌঁছে যাবে। তারপর ধীরে ধীরে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে বাঁক নিয়ে মছলিপত্তমন, নরসাপুর, ইয়ানাম, কাঁকিনাড়া, তুনি এবং বিশাখাপত্তনম উপকূলে ধরে এগিয়ে যাবে।

আবহাওয়াবিদ শাহিনুল ইসলাম বলেন, ঝড়টি ইতোমধ্যে সাধারণ ঝড়ে পরিণত হয়েছে। যে গতিপথে এগোচ্ছে তাতে এটি দুপুর নাগাদ ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। এর প্রভাবে সারাদেশেই আজ বৃষ্টি হবে। ঝড়ের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় দেশের চার সমুদ্র বন্দরে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত এবং নদী বন্দরে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়ার ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

এদিকে বাংলাদেশের আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও আশেপাশের এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘অশনি’ উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে। এটি সাধারণ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৩২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ২৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ১৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ১৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। দুপুর নাগাদ আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে

সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

এদিকে নদীবন্দরের জন্য দুপুর ১টা পর্যন্ত দেওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, রাজশাহী, রংপুর, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে দক্ষিণ বা দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ অস্থায়ীভাবে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নৌবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

কালের আলো/বিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email