বদমাইশির চেয়ে বিয়ে উত্তম!

প্রকাশিতঃ 5:55 pm | May 30, 2018

::আসিফ আকবর::

২০১৭ সালের শুরু থেকেই টিভি পত্রিকায় ঘ্যান ঘ্যান করে আসছি আরেকটা বিয়ে করবো। এ নিয়ে আমার একমাত্র বউয়ের কোন অবজেকশন না থাকায় জাতিরও উদ্বিগ্ন হওয়ার কথা নয়। মাঝে মাঝে ফ্যান পেজে এই নিয়ে মন্তব্যের উত্তরও দিয়েছি। বেশির ভাগ অডিয়েন্স পোল বিয়ের বিপক্ষে আর কিছু রহম হৃদয় ফ্যান বলেছেন- ভাবিকে একটু বিশ্রাম দেয়া দরকার। আমিও ভেবে দেখলাম কিছু বুঝে ওঠার আগেই প্রেম বিয়ে সংসার নিয়ে মোট ত্রিশ বছর কেটে গেল।

একজন ক্রিকেটার এবং দলীয় অধিনায়ক হিসেবে আমার বেগমের ক্ষেত্রে ‘রিটায়ার্ড হার্ট’ অপশনটা অ্যাপ্লাই করা যেতে পারে, তবে ডিভোর্স শব্দটা এক্ষেত্রে আসবে না। তাছাড়া ছেলেরাও যুবক হয়ে গেছে, এখন ওরাই আমার মূল প্রতিদ্বন্দ্বী। বাই চান্স যদি ওরা দ্রুত বিয়ে করে ফেলে তাহলে আমি একটা শৃঙ্খলার মধ্যে পড়ে যেতে পারি, সুতরাং হাতে সময় কম। আর পৃথিবীতে আমিই একমাত্র পুরুষ না যিনি দ্বিতীয় বিয়ের কথা ভাবছেন। আমার অবিবাহিত এবং সদ্য বাবা হওয়া বন্ধুদের কাছ থেকে বেসিক উৎসাহ পাচ্ছি।

এদিকে মারজুকের গান গাইলাম বকবক টগবগ, প্রেম বিরহ বিবাহ ডিভোর্স নিয়ে মিডিয়া আর জাতি উত্তেজিত। মিডিয়াতে এ বছর সর্বসাকুল্যে হয়তো ১০টি এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। এই নিয়ে ফ্যানদের কৌতূহলের শেষ নেই। কোন কোন ফ্যানতো আর্টিস্টের ক্যারিয়ার শেষ বলে মতামত দিচ্ছে দেদারছে। ক্যারিয়ার আসলে পাকা জাম ফল না, আড়াই দিনে ঝরে পঁচে যাবে।

পত্রিকা বেচার একটা ছোট কৌশল হচ্ছে- সেলিব্রেটিদের ব্যক্তিজীবন নিয়ে নাড়াচড়া করা। অথচ প্রচুর সাংবাদিকের কিচ্ছা আমার কাছে আছে, যেগুলোর কারণে আমিই ‘সাপ্তাহিক সাংবাদিক সংবাদ’ নামে একটি পত্রিকা খুলতে চেয়েছিলাম। এদিকে খবর নিয়ে দেখেছি সেলিব্রেটিদের নিয়ে যারা বকবক করে, তাদের মধ্যে বিবাহোত্তর ডিভোর্সের হার হাজার হাজার গুণ বেশি, হাতে প্রমাণের অভাব নেই। তাদের নিয়ে আলোচনা হবে না, কারণ তারা শোবিজের লোক না, উপভোগকারী মাত্র।

যাইহোক, গত আঠারো মাস ঘোষণা দিয়ে একটা বিয়ের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি, কাজ হচ্ছে না। আমার বেগমের পূর্ণ সমর্থন পেয়েছি, ছেলেরাও ১৮+ হয়ে গেছে, আমি দায়িত্ব মুক্ত, এবার জোর চেষ্টা চালাবো। টেলিফোনে এসএমএস করে এক আপু লোভনীয় অফার দিয়েছে, আমার ভয় ধরে গেছে।

পূর্ব দক্ষিণে সারাজীবন কাটালাম, পশ্চিমে কেবলা, এবার উত্তরে যাবো, আশা করি রংপুরেই বিয়েটা করতে পারবো। যার জীবন, সেই তার জীবনের প্রয়োজনীয়তা বুঝবে, গ্যালারি ভর্তি দর্শকের তা বোধগম্য হওয়া সম্ভব নয়। সবার দোয়া এবং বদদোয়া নিয়েই এগুতে চাই, মূল শ্লোগান হোক– বদমাইশির চেয়ে বিয়ে উত্তম!!

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

Print Friendly, PDF & Email