শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

প্রকাশিতঃ 12:27 am | February 21, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে জাতির পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহান ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার(২১ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টা ১ মিনিটে প্রথমে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এবং পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এরপর নেতাকর্মীদের সঙ্গে দলটির সভাপতি শেখ হাসিনা শ্রদ্ধা জানান। এসময় দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা তার সঙ্গে ছিলেন।

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী

এরপর জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এরপর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরী, বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক(আইজিপি) ড. জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম(বার)।

বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ জাতীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন

তারপর ধারাবাহিকভাবে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, বাহিনী, সংস্থা, ফোরাম ও সংগঠনের প্রধানরা।

যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, ভাষা শহীদদের পরিবারের পক্ষ থেকেও বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

সুপ্রিম কোর্ট ও হাইকোর্টের বিচারপতিরা, বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও রাষ্ট্রদূত, ওআইসি প্রতিনিধি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতিসহ বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ভাষা শহীদদের সশস্ত্র সালাম প্রদান করেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরী

এর পরই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সাধারণের শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। এ সময় বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক দল ও সংগঠন ছাড়াও ছাত্র, যুব, নারী, শ্রমিক, শিশু-কিশোর সংগঠনগুলো এবং শত শত মানুষ সারিবদ্ধভাবে একে একে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে গভীর শ্রদ্ধা জানান ভাষাশহীদদের প্রতি। এ সময় মাইকে অমর-করুণ সুর বাজানো ছাড়াও

ধারাভাষ্যকারেরা অবিরাম কবিতার পঙিক্তমালা আবৃত্তি করেন। একুশের প্রভাত ফেরিতে অংশ নেওয়া নারী-পুরুষ ও শিশুদের অনেকেরই পরনে বাংলা বর্ণমালা দিয়ে আঁকা পোশাক।

বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক(আইজিপি) ড. জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম(বার) ও পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তারা জাতীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

কালের আলো/এনএল/পিএম

Print Friendly, PDF & Email