জাতীয় পতাকাকে উচ্চতার শিখরে প্রতিষ্ঠিত করতে সেনাবাহিনী দৃঢ় প্রতিজ্ঞ, বললেন সেনাপ্রধান

প্রকাশিতঃ 5:41 pm | January 08, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী মাতৃভূমির সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও দেশের উন্নয়নে অবদান রাখার পাশাপাশি বিশ্ব পরিমন্ডলে জাতীয় পতাকাকে উচ্চতার শিখরে প্রতিষ্ঠিত করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

তিনি বলেছেন, সেনাবাহিনীর কৃতি খেলোয়াড়রা শুধু এসএ গেমসই নয়, এশিয়ান গেমস কিংবা অলিম্পিকেও নিজেদের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখতে সক্ষম হবে।

বুধবার(০৮ জানুয়ারি) সকালে সেনাসদর মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার প্রাপ্ত সেনাবাহিনীর কৃতি খেলোয়াড় এবং ১৩তম সাউথ এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পদক বিজয়ীদের সম্মানে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সেনাপ্রধান বলেন, সূচনা লগ্ন হতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অপার দেশপ্রেম, নিরলস প্রচেষ্টা ও অধ্যবসায়ের মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সফলতা অর্জন করেছে। ক্রীড়াক্ষেত্রে দেশ ও জাতির জন্য সম্মান ও গৌরব বয়ে এনেছে। তারই স্বীকৃতি স্বরূপ বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন সময়ে সেনাবাহিনীর কৃতি খেলোয়াড়দের জাতীয় পুরস্কারে ভূষিত করেছেন।

তিনি বলেন, আজকের এ আয়োজন যেন সেনাবাহিনীর ক্রীড়াঙ্গনের প্রবীন ও নবীন খেলোয়াড়দের এক বিরল মিলনমেলা। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনের পরিচর্যাকারী বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন, অন্যান্য ফেডারেশন এবং বিকেএসপির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ অন্যান্যদের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণ নি:সন্দেহে এ আয়োজনে ভিন্নমাত্রা যোগ করেছে। এবং পেছনের সারিতে বসে থাকা সেনাবাহিনীর নবীন খেলোয়ারদের দারুণভাবে অনুপ্রাণিত ও উৎসাহিত করেছে।

সেনাপ্রধান নিজের বক্তব্যের শুরুতেই পরম শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমাকে। প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার প্রতি নিবিড় ভালোবাসার কারণে দেশের ক্রীড়াঙ্গনকে গতিশীল করার পাশাপাশি তরুণ প্রজন্মকে খেলাধুলায় আকৃষ্ট করতে এবং আন্তর্জাতিক ক্রীড়াঙ্গনে বাংলাদেশের পতাকাকে সমুন্নত রাখতে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা ও পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করে আসছে।

জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, ‘সদ্য সমাপ্ত ১৩তম এসএ গেমসে বাংলাদেশ অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে। সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে আমি তাদের এই বিরাট অর্জনে সবাইকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন ও মোবারকবাদ। তাদের এই সফলতার পেছনের মূল কারিগরদেরও অভিনন্দন।’

তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর যেসকল সদস্য জাতীয় দলের হয়ে এসএ গেমসে অংশগ্রহণ করেছে কিন্তু পদক অর্জন করতে পারেনি তাদের জন্য রইলো আমাদের শুভ কামনা। ইনশাআল্লাহ তোমাদের এই অভিজ্ঞতা ভবিষ্যতের উন্নতির পথে পাথেয় হয়ে থাকবে।’

অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর ১৫ জন জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রাক্তন খেলোয়াড়কে পুরস্কৃত করা হয়। নেপালে অনুষ্ঠিত ১৩তম সাউথ এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১০৫ জন সদস্য ২০টি খেলায় অংশগ্রহণ করে ০৯টি স্বর্ণ (দলগত-০৫টি ও ব্যক্তিগত-০৪টি), ২৩টি রৌপ্য (দলগত-১৬টি ও ব্যক্তিগত-০৭টি) এবং ৩৮টি তাম্র (দলগত-২২টি ও ব্যক্তিগত-১৬টি) পদক অর্জন করে।

অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল (কিউএমজি) লেফটেন্যান্ট জেনারেল শামসুল হক, চিফ অব জেনারেল স্টাফ (সিজিএস) লেফটেন্যান্ট জেনারেল শফিকুর রহমানসহ সেনা সদরের কর্মকর্তা, বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের মহাসচিব ও অন্যান্য কর্মকর্তা, মহাপরিচালক বিকেএসপি, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ সচিব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কালের আলো/এনএল/এমএইচএ

Print Friendly, PDF & Email