পর্যটকদের দ্রুত কাশ্মীর ছাড়ার নির্দেশ কর্তৃপক্ষের

প্রকাশিতঃ 12:18 pm | August 04, 2019

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, কালের আলো:

সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় ভারত-নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে নিরাপত্তা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সরকারি নির্দেশিকার পরই কাশ্মীরজুড়ে আতঙ্ক গ্রাস করেছে। পরিস্থিতি বেগতিক হওয়ার আশঙ্কায় পেট্রোল পাম্প, মুদির দোকান থেকে এটিএম, সর্বত্রই মানুষের ভিড়। বিমান বাতিলের ভাড়া মকুব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিমান সংস্থাগুলো।

রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক যদিও অহেতুক আতঙ্ক ছড়াতে বারণ করেছিলেন উপত্যকাবাসীকে, কিন্তু শনিবার (০৩ আগস্ট) থেকে স্কুল, কলেজ, হাসপাতালগুলো শুনশান হতে শুরু করেছে। এদিন ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি-শ্রীনগরের প্রায় সাড়ে ৯শ’ পড়ুয়াকে উপত্যকা ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবারই (০২ আগস্ট) প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, অনির্দিষ্ট কালের জন্য পঠনপাঠন স্থগিত থাকবে।

এ প্রসঙ্গে এনআইটি শ্রীনগরের ডিরেক্টর রাকেশ সেহগাল জানিয়েছেন, প্রশাসন থেকেই আমাদের কাছে নির্দেশ এসেছে। আমরা নিজেরা এই সিদ্ধান্ত নেইনি। মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আমি নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি।

অন্যদিকে ডেপুটি কমিশনার শাহিদ চৌধুরী টুইট করে জানিয়েছেন, যে হারে উপত্যকায় গুজব ছড়াচ্ছে, তাতে অহেতুক আতঙ্ক বাড়ছে। সমস্ত প্রতিষ্ঠানের মাথাকেই এই সময়ে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। কোনও প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি হয়নি।

কাশ্মীরের সরকারি পলিটেকনিক কলেজের চেহারাও একই। কলেজ কর্তৃপক্ষ নোটিস জারি করে পড়ুয়াদের অবিলম্বে হোস্টেল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে।

সরকারি হাসপাতালের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে হাসপাতালের সমস্ত কর্মীদের জানানো হচ্ছে, কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে উপত্যকা ছাড়া যাবে না। এই নির্দেশ অমান্য করলে কর্মীর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কুপোয়ারার হাসপাতালেও একই নির্দেশ জারি হয়েছে।

সন্ত্রাস হামলার আশঙ্কা প্রকাশ করে শুক্রবারই কার্যত নজিরবিহীন ভাবে অমরনাথ যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। শুধু অমরনাথ যাত্রাই নয়, কাশ্মীরে মাছিল মাতা যাত্রাও স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক প্রশাসন। অবিলম্বে সমস্ত পর্যটককে কাশ্মীর ছাড়তে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে ভয়-আতঙ্কে ত্রস্ত উপত্যকাবাসী। সরকারি নির্দেশিকার পরই ভূ-স্বর্গ ছাড়তে শুরু করেছেন পর্যটকরা। এক সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, উপত্যকায় প্রায় ১১ হাজার পর্যটক রয়েছেন। যাদের মধ্যে ২০০ জনেরও বেশি বিদেশি পর্যটক রয়েছেন। খবর: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

কালের আলো/এআর/এমএম

Print Friendly, PDF & Email