মৎস্য ব্যবস্থাপনায় অবদানে স্বর্ণপদক পেল নৌবাহিনী

প্রকাশিতঃ 9:22 pm | July 18, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

দেশের মৎস্য সম্পদ উন্নয়ন ও সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ ব্যবস্থাপনায় অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এ বছর ‘জাতীয় মৎস্য পুরস্কার ২০১৯’ এর স্বর্ণপদক অর্জন করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন (কেআইবি) মিলনায়তনে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরীর হাতে স্বর্ণপদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, অনুষ্ঠান শেষে নৌ সদর দফতরে এ বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং করেন পরিচালক নৌ অপারেশন্স কমডোর মাহমুদুল মালেক। এ সময় তিনি দেশের মৎস্য সম্পদ উন্নয়ন ও সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ ব্যবস্থাপনায় নৌবাহিনীর বিভিন্ন কার্যক্রমসমূহ তুলে ধরেন।

আইএসপিআর জানায়, দেশের অভ্যন্তরীণ নদ-নদী ও সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় সারাবছর বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও কোস্ট গার্ডের ‘অপারেশন জাটকা’ এবং ‘মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান’ পরিচালনার করে। এর ফলে গত ১০ বছরে ইলিশ উৎপাদনের গড় প্রবৃদ্ধি ৫ দশমিক ২৬ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।

পৃথিবীর প্রায় দুই-তৃতীয়াংশের অধিক ইলিশ উৎপাদনকারী দেশ হিসেবে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে। গত ২০০৮-৯ সালে দেশে ইলিশের উৎপাদন ছিল ৩ দশমিক ১৩ লাখ মেট্রিক টন। ২০১৭-১৮ সালে তা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ১৭ লাখ মেট্রিক টনে। যা দেশের মৎস্য উৎপাদনের প্রায় ১২ শতাংশ। যার বাজার মূল্য ২০ হাজার কোটি টাকা। বাংলাদেশের জিডিপিতে ইলিশ মাছের অবদান প্রায় শতকরা ১ ভাগ। নৌবাহিনীর অভিযানের ফলে ইলিশের এ উৎপাদন বৃদ্ধি হয়েছে এবং দেশের বাজারে ইলিশের প্রাচুর্যের পাশাপাশি বিদেশেও রফতানি করা সম্ভব হচ্ছে।

২০০১ সাল থেকে ইলিশ রক্ষায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ৫ থেকে ৭টি জাহাজ দেশের অভ্যন্তরীণ নদ-নদী ও সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় সার্বক্ষণিক মোতায়েন থাকে। গত অর্থ বছরে (২০১৮-১৯) নৌবাহিনী জাটকা ও মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান চালিয়ে ৩৩৮ কোটি টাকা মূল্যের অবৈধ জাল, নৌকা ও পোনা উদ্ধার করে। ২০০৩ সালেও জাতীয় মৎস পুরস্কার-স্বর্ণপদক পায় নৌবাহিনী।

এছাড়া, ২০০১ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত নৌবাহিনী ‘অপারেশন জাটকা ও মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান’ চালিয়ে ৭৩ কোটি ৯৫ হাজার ৪২২ মিটার অবৈধ জাল, ২৫৮ টি নৌকা, ১ লাখ ৬৭ হাজার ২৫০ কেজি জাটকা ও ১১ লাখ ৫০ হাজার রেনু পোনা উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ২ হাজার ৪৭৮ কোটি ৪৮ লাখ ৯ হাজার ৯৮৩ টাকা।

কালের আলো/এআর/এনএম

Print Friendly, PDF & Email