নতুন মাইলফলক, এবার বাংলাদেশ সফরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১৫ তরুণ দম্পতি

প্রকাশিতঃ 9:35 pm | July 06, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো :

এবার বাংলাদেশ সফরে এসেছেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১৫ তরুণ দম্পতি। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের আমন্ত্রণে তাঁরা বাংলাদেশে এসেছেন।

শনিবার (০৬ জুলাই) বিকেল ৩ টা ৫৮ মিনিটে তাঁরা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি বিশেষ বিমানে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান।

৭ দিনের এ সফর ভারত ও বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। সফরকালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এ প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন ও মধ্য পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন।

পাশাপাশি তাঁরা জাতীয় স্মৃতিসৌধ, জাতীয় সংসদ, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর, বিজয়কেতন জাদুঘর, প্রয়াস, হাতিরঝিল ও কক্সবাজার পরিদর্শন করবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে প্রতিরক্ষা সহযোগিতার উদ্দেশ্যে গত বছরের ২৬ নভেম্বর ৭ দিনের সফরে ভারত সফর করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি প্রতিনিধি দল। ওই সময় ভারতীয় বিমানবাহিনীর দু’টি এয়ারক্রাফটে প্রতিনিধি দলটির সদস্যরা ঢাকা থেকে দিল্লি যান। সেনাবাহিনীর তরুণ ২৫ জন কর্মকর্তার সেই সফরে প্রথমবারের মতো সঙ্গী হন তাদের জীবনসঙ্গীরা।

পরে এ সফর শেষ হয় গত বছরের ৩ ডিসেম্বর। বাংলাদেশ ও ভারতের জনগণের সঙ্গে যোগাযোগ বৃদ্ধি ও সাংস্কৃতিক বিনিময় ছিল এই সফরের অন্যতম উদ্দেশ্য। প্রতিনিধি দলটি দিল্লি, আগ্রা, কলকাতার বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মস্থান চুরুলিয়া পরিদর্শন করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাংলাদেশ ও ভারতের সামরিক বাহিনীর মধ্যে চলমান সহযোগিতা বিস্তৃত করতেই এমন সফরের আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াতের সঙ্গে এক বৈঠকে এই সফরের বিষয়ে প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

সে অনুযায়ী ভারতের সেনাপ্রধান এই সফর বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেন। তাঁরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধানও এ সফর বাস্তবায়ন করছেন।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ সৃষ্টিশীল ও মননশীল মানুষ। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আধুনিক পথচলায় নেতৃত্ব দিয়ে দেশের গন্ডি ছাপিয়ে বিদেশেও তিনি প্রশংসিত হয়েছেন। বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু ভারতের সেনাবাহিনীর সঙ্গে সহযোগিতা বিস্তৃত করতেই তিনি সময়োপযোগী এ উদ্যোগ গ্রহণ করেন। পারস্পরিক এমন সফর দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে নতুন মাত্রা দেবে।

কালের আলো/এমএইচ/এএ

Print Friendly, PDF & Email