নাট্যজন মমতাজউদদীনের মৃত্যুতে বশেফমুবিপ্রবি ভিসির শোক

প্রকাশিতঃ 12:02 am | June 03, 2019

নিউজ ডেস্ক, কালের আলো:

ভাষাসৈনিক ও স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের নাট্য আন্দোলনের পথিকৃত খ্যাতিমান নাট্যকার অধ্যাপক মমতাজউদদীন আহমদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেফমুবিপ্রবি) উপাচার্য প্রফেসর ড. সামসুদ্দিন আহমেদ।

রোববার (২ জুন) এক বিবৃতিতে এ শোক জানান তিনি।

বশেফমুবিপ্রবি উপাচার্য বলেন, একুশে পদকপ্রাপ্ত নাট্যজন মমতাজউদদীন আহমদ ছিলেন বাংলাদেশের নাট্যজগতের একজন উজ্জ্বল নক্ষত্র। স্বাধীনতাপরবর্তী সময়ে দেশের নাট্য আন্দোলনের পথিকৃতের মৃত্যু সাংস্কৃতিক অঙ্গনের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। কাজ দিয়ে মানুষের হৃদয়ে অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবেন ড. মমতাজউদ্দীন আহমদ।

বিবৃতিতে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে তার পরিবারের মোকসন্তপ্ত সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান প্রফেসর ড. সামসুদ্দিন।

এর আগে রোববার বিকেলে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মমতাজউদদীন আহমদ। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

এক অঙ্কের নাটক লেখায় বিশেষ পারদর্শিতার স্বাক্ষর রেখেছেন ভাষাসৈনিক মমতাজউদদীন আহমদ। নাটকে বিশেষ অবদানের জন্য ১৯৭৬ সালে তিনি বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ও ১৯৯৭ সালে একুশে পদক লাভ করেন।

১৯৩৫ সালের ১৮ জানুয়ারি ব্রিটিশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের অন্তর্গত মালদহ জেলার হাবিবপুর থানার আইহো গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন মমতাজউদদীন আহমদ। দেশ বিভাগের পর তার পরিবার তদানীন্তন পূর্ববঙ্গে চলে আসে। তার বাবার নাম কলিমুদ্দিন আহমদ ও মায়ের নাম সখিনা বেগম।

শিল্প ও সাহিত্যে অনন্য অবদানের জন্য তিনি জাতীয় ও আঞ্চলিক পর্যায়ে বেশ কিছু পুরস্কার পেয়েছেন। নাট্যকলায় অবদানের জন্য ২০০৮ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক বিশেষ সম্মাননা, বাংলাদেশ শিশু একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ও আলাওল সাহিত্য পুরস্কার অন্যতম।

কালের আলো/ওএইচ

Print Friendly, PDF & Email