পৃথিবীর সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পেশা হলো সাংবাদিকতা : আরেফিন সিদ্দিক

প্রকাশিতঃ 10:56 am | May 19, 2019

কালের আলো প্রতিবেদক:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেছেন, সাংবাদিকদেরকে নানা অন্যায়, অনিয়ম, জালিয়াতি নিয়ে সংবাদ করতে হয়। এসবের ঝুঁকি আছে। জীবনের ঝুঁকি আছে। বিভিন্ন দেশের সাংবাদিকদের হত্যাকাণ্ডের শিকার হতে হয়। জেল জুলুম সহ্য করতে হয়। এতে বুঝা যায় পৃথিবীর সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পেশা হলো সাংবাদিকতা।

শনিবার (১৮ মে) বিকেল ৫টায় রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) শেখ কামাল অনুষদ ভবনের সেমিনার কক্ষে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (শেকৃবিসাস) আয়োজিত ‘ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার প্রতিবন্ধকতা ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, কোনো কিছু ঘটে গেলে তখন সেটা নিয়ে নিউজ করা হয়। এই জায়গা থেকে আমাদের অগ্রসর হতে হবে। ভূমধ্যসাগরে জালিয়াতি চক্রের কবলে পড়ে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর সংবাদ প্রকাশ করার চেয়ে আগেই সংবাদের মাধ্যমে জালিয়াত চক্রের পরিচয় প্রকাশ করলে এই ক্ষতি হয়তো হতো না।

সেমিনারে শেকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদের সভাপতিত্বে ও শেকৃবিসাসের সাধারণ সম্পাদক রাকিব খানের সঞ্চালনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাংবাদিক সোলাইমান নিলয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- শেকৃবির ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক ও শেকৃবিসাসের মডারেটর অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান, পাবলিক মেডিসিন ও হেলথ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. কেবিএম সাইফুল ইসলাম এবং কৃষি রসায়ন বিভাগের ড. তাজুল ইসলাম চৌধুরী।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা আয়োজনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

অনুষ্ঠানে শেকৃবিসাসের সদস্যদের মধ্যে থেকে তিন ক্যাটাগরিতে সেরা সাংবাদিক ঘোষণা করা হয়। সেরা অনুসন্ধানী প্রতিবেদক নির্বাচিত হয়েছেন বাংলানিউজের শেকৃবি করেসপন্ডেন্ট মহিবুল আলম সবুজ, ফিচার বিভাগে সেরা সাংবাদিক দৈনিক কালের কণ্ঠের শেকৃবি প্রতিনিধি শাহাদত হোসেন এবং সেরা কৃষি বিষয়ক প্রতিবেদক নির্বাচিত হয়েছেন ডেইলি অবজারভারের শেকৃবি প্রতিনিধি আশিক আব্দুল্লাহ।

অনুষ্ঠানটিতে শেকৃবিসাস অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

কালের আলো/এএ/পিআর

Print Friendly, PDF & Email